কলকাতায় মানব পাচারকারীদের ‘টর্চার সেলের’ খবর দিল র‌্যাব

অস্ট্রেলিয়া ও ইউরোপের বিভিন্ন দেশে নিয়ে যাওয়ার কথা বলে কলকাতার টর্চার সেলে বাংলাদেশি নাগরিকদের আটকে রাখার ঘটনা ঘটেছে বলে জানিয়েছে র‌্যাব। আজ মঙ্গলবার কারওয়ান বাজারের মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে র‌্যাব–৪ এ কথা জানায়।

সংবাদ সম্মেলনে পাচারের শিকার দুই ব্যক্তিকে হাজিরও করেছিল তারা। র‌্যাব জানিয়েছে, ভুক্তভোগীদের পাচারের ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে তারা তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছে। গ্রেপ্তার ব্যক্তিরা হলেন মল্লিক রেজাউল হক সেলিম (৬২), বুলবুল আহমেদ মল্লিক (৫৫) ও নিরঞ্জন পাল (৫১)। তিনজনই একসময় অভিবাসী শ্রমিক ছিলেন।

র‌্যাব–৪–এর অধিনায়ক অতিরিক্ত উপমহাপরিদর্শক মোজাম্মেল হক সংবাদ সম্মেলনে জানান, বাংলাদেশে মানব পাচারকারী এই চক্রের আরও ৮ থেকে ১০ জন সদস্য আছেন। জিজ্ঞাসাবাদে তাঁরা ভারতে থাকা তাঁদের আরও তিনজন সহযোগীর নাম জানিয়েছেন। সহযোগীরা হলেন রাজীব খান, মানিক ও দিল্লির রবিন সিং। তিন–চার বছর ধরে চক্রটি মানব পাচারে জড়িত।

মানব পাচারকারী এই চক্রের কার্যক্রম সম্পর্কে র‌্যাব জানায়, অস্ট্রেলিয়া ও ইউরোপের বিভিন্ন দেশে শ্রমিক হিসেবে যেতে ইচ্ছুক এমন ব্যক্তিদের নিশানা করত চক্রটি। তাদের খপ্পরে পড়া ব্যক্তিদের মধ্যে ফেনী, কুমিল্লা, নবাবগঞ্জ, শরীয়তপুর, মাদারীপুর ও ঢাকার বিভিন্ন এলাকার মানুষ রয়েছেন। চক্রের সদস্যরা ভুক্তভোগীদের অস্ট্রেলিয়া, পর্তুগাল, নেদারল্যান্ড, রোমানিয়া, গ্রিস, ফ্রান্স ও মাল্টায় বেশি বেতনের চাকরির প্রলোভন দেখাত। তারা ভুক্তভোগীদের কাছ থেকে ১২ থেকে ১৫ লাখ টাকা পর্যন্ত আদায় করত। কিন্তু প্রতিশ্রুত গন্তব্যে পৌঁছে দেওয়ার বদলে তাঁদের নিয়ে যাওয়া হতো কলকাতায়। সেখানে ভুক্তভোগীদের নির্যাতন করে অডিও ও ভিডিও দেশে পাঠিয়ে চক্রের সদস্যরা টাকা আদায় করতেন।